cplusbd

নিউজটি শেয়ার করুন

বোয়ালখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জলাবদ্ধতা, ভোগান্তিতে রোগীরা

1st Image

বোয়ালখালী প্রতিনিধি (২০১৯-০৭-১০ ০৭:২৫:১৫)

বোয়ালখালী পৌর সদরে অবস্থিত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রবেশদ্বার যেন পরিণত হয়েছে কর্ণফুলী নদীতে। বৃষ্টি নামলেই হাসপাতালের প্রবেশ পথে জমে যায় পানি। এই পানি অতিক্রম হাসপাতালে পৌঁছাতে রোগীদের চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়। এই দুর্ভোগ দীর্ঘদিন ধরে চলে আসলেও নজর নেই কর্তৃপক্ষের। এতে রোগীসহ সঙ্গে আসা স্বজনদের চলাচলে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। বোয়ালখালী পৌর সদর সড়ক ঘেঁষে বোয়ালখালী পৌরসভার প্রায় ২শ গজ পশ্চিম-দক্ষিণে অবস্থিত বোয়ালখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি। প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৩-৪শ জন রোগী চিকিৎসা সেবা নেওয়ার জন্য এই হাসপাতালটিতে আসেন। কিন্তু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রবেশ পথে জমে থাকা জলাবদ্ধতার কারণে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন বলে জানা যায়। বোয়ালখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রবেশদ্বার নিচু হওয়ার কারণে একটু বৃষ্টি নামলে সেখানে পানি জমে যায়। অপরদিকে পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেনের ব্যবস্থা থাকলেও দীর্ঘদিন ধরে ড্রেনে সংস্কারের অভাবে দিনের পর দিন পানি জমে থাকে। জরুরি ভিত্তিতে রোগী নিয়ে হাসপাতালে ছুটে আসলেও বেকায়দায় পড়তে হয় হাসপাতালের প্রবেশ পথে। শনিবার সকাল থেকে মুষলধারে বৃষ্টির পর হাসপাতালের প্রবেশ পথে জমে রয়েছে পানি। এতে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের পড়তে হয় চরম দুর্ভোগে। মঙ্গলবার সকালে হাসপাতালের প্রবেশ পথে গিয়ে দেখা যায় সেখানে এখনো জমে রয়েছে পানি। এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাক্তার জিল্লুর রহমানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, প্রতি বছর বোয়ালখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স বোয়ালখালী পৌরসভাকে ১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা কর দিয়ে আসছে। জলাবদ্ধতার এ সমস্যাটি বারবার পৌর কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলেও কোন অগ্রগতি নেই। জলাবদ্ধতা সমাধানের দায়িত্ব বোয়ালখালী পৌরসভার। কিন্তু তারা এ ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা নিতে পারেনি বলে তিনি মন্তব্য করেন। এ ব্যাপারে বোয়ালখালী পৌরসভার উপসহকারী প্রকৌশলী মো. কামরুজ্জামানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, হাসপাতালে জলাবদ্ধতার সমস্যা সমাধান করা আমাদের কাজ না। এগুলো আমাদের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে না। হাসপাতালের জলাবদ্ধতা নিরসন করবে জেলা সিভিল সার্জন। পৌরবাসীর জলাবদ্ধতা নিরসনের দায়িত্ব কার এমন প্রশ্ন করলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান। সবার ঠেলাঠেলিতে কাজ হচ্ছেনা বলে জানান ভূক্তভোগীরা। ভুক্তভোগীরা আরো বলেন, জমে থাকা পানির কারণে মূমুর্ষ রোগীকে আনতে কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে। কোন গাড়ি হাসপাতাল পর্যন্ত আসতে চায় না জলাবদ্ধতার কারণে। অচিরেই পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে অবস্থা আরো দিগুণ খারাপ হবে বলেও মন্তব্য করেন।