cplusbd

নিউজটি শেয়ার করুন

কেপিএমে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ: উৎপাদন ব্যাহত, জনদুর্ভোগ চরমে

1st Image

নিজস্ব প্রতিবেদক (২০১৯-০৮-০৫ ০৯:০৬:৩৭)

কাপ্তাইয়ের চন্দ্রঘোনাস্থ কর্ণফুলী পেপার মিলস (কেপিএম) লিঃ এ যান্ত্রিক ত্রুটি জনিত কারণে গত রোববার (৪ আগষ্ট) বিকেল থেকে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় মিলে উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। গ্যাস না থাকায় অবর্ণনীয় দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শ্রমিকদের। চট্টগ্রাম কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লি. এর মহা-ব্যবস্থাপকরে সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, রোববার দুপুরে কেপিএমের মিটারিং স্টেশনের পাটর্স নষ্ট হওয়ার কারণে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। তবে আমরা আমাদের একটি টিম ঘটনাস্থলে পাঠিয়েছি।

চন্দ্রঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার ইসলাম চৌধুরী বেবি জানান, গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় ওইদিন বিকেলে থেকেই মিলের নিজস্ব জেনাটেটারে বিদ্যুৎ উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। ফলে কাগজ উৎপাদন বন্ধসহ আবাসিক এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এতে শ্রমিক-কর্মচারীরা সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছে। পারিবারিক কাজে ব্যবহৃত রান্নার চুলাও জ্বলছে না। যে কারণে আবাসিক এলাকায় বসবাসকারী শ্রমিক-কর্মচারীরা মারাত্বক বিপর্যয়ে পড়েছে। এদিকে, মিল কর্তৃপক্ষ রান্নার কাজে হিটার ব্যবহার করতে দিচ্ছে না। রোববার সন্ধ্যায় কেপিএম কর্তৃপক্ষ সমগ্র আবাসিক এলাকায় মাইকিং করে সকল কর্মজীবিদের জানিয়ে দেয় যে, গ্যাস বন্ধের কারণে কেউ কোন ভাবেই বৈদ্যুতিক হিটার ব্যবহার করতে পারবে না। এনির্দেশ অমান্য করা হলে তাদের বিরোদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কয়েকজন শ্রমিক- কর্মচারী বলেন, গত তিনমাস (মে, জুন, জুলাই) ধরে আমাদের বেতন- ভাতা দেওয়া হচ্ছেনা।একটি গ্যাস সিলিন্ডার কিনতে হলেও তো কমের মধ্যে ৫ হাজার টাকার প্রয়োজন। এই টাকা এমূহুর্তে আমরা কোথায় পাব।

কাপ্তাই উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মফিজুল হক বলেন, কেপিএমের শ্রমিক-কর্মচারীদের জন্য বেতন ভাতা বকেয়ার ঘটনা যেমনি ভাবে নিত্যদিনের সঙ্গি হয়ে গেছে, ঠিক তেমনি পানি, বিদ্যুৎ সরবরাহের ক্ষেত্রেও সমস্যার চিত্রও একই। এসব বিষয় নিয়ে রাঙামাটির সাংসদ, বিসিআইসিসহ বিভিন্ন দপ্তরে জানানোর পাশাপাশি প্রায় সময় আইন-শৃঙ্খলা সভায় কথাগুলি বলে যাচ্ছি। কিন্তু কে শুনে কার কথা।

এবিষয়ে জানতে কর্ণফুলী পেপার মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ড.এম.এম.এ কাদেরের মোবাইলে একাধিকবার কল করেও অপর প্রান্ত থেকে কোন সাড়া পাওয়া যায়নি। ফলে কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেলের কাছে অবস্থার উত্তরণে কার্যকারী পদক্ষেপের কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, সরেজমিনে গিয়ে বিষয়টি জেনে সমাধানের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।